সত্য ও সুন্দরের প্রতি আহ্বান

রমজান জিজ্ঞাসা – পর্ব ছয়

আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ! সম্মানিত রোজাদার ভাই- বোনেরা। আশা করছি সুস্থতার সাথে ঈমান ও ইহতেসাবের সাথে পবিত্র রমজান মাস অতিবাহিত করছেন। আপনার সিয়াম সাধনাকে আরো সুন্দর ও পরিপূর্ণ করতে আমরা আপনার মনে জাগ্রত হওয়া রমজান নিয়ে নানা প্রশ্নের সমাধান নিয়ে আপনার নিকট হাজির হয়েছি।  কুরআন হাদিসের দলিল সংবলিত“ রমজান জিজ্ঞাসা” নামক প্রশ্ন উত্তর নিয়ে। আসা করছি আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা আপনার সিয়াম সাধনাকে আরো সৌন্দর্য মন্ডিত করে তুলবে।

রমজান জিজ্ঞাসা – পর্ব ছয়

৫১.প্রশ্ন:  নাকে ড্রপ ব্যবহারে রোজা ভঙ্গ হবে কি?

উত্তর: নাকে ড্রপ ব্যবহারে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। কেননা নাকের সাথে পেটের সংযোগ রয়েছে। তাইতো রাসূল স: বলেছেন:  وبالِغْ في الاستنشاقِ إلَّا أنْ تكونَ صائمًا( ‍সিয়াম অবস্থায় না  থাকলে নাকে অযুর ক্ষেত্রে নাকি অতিরিক্ত পানি নিবে)  (তিরমিজি ৭৮৮)

৫২. প্রশ্ন: অক্সিজেন গ্যাস ব্যবহারে রোজা ভঙ্গ হবে?

উত্তর: অক্সিজেন গ্যাস এমন এক প্রকার বায়ু যা শ্বাসনালীতে দেওয়া হয় এবং এতে পুষ্টিকর কোন খাদ্য থাকে না। আর এটি স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস ও প্রাকৃতিক হাওয়া-বাতাস গ্রহণ করার মতো। তাই অক্সিজেন গ্যাস ব্যবহারে রোজা ভাঙ্গবে না।

৫৩.প্রশ্ন:  আতর,সুগন্ধি ব্যবহার গ্রাণ নিলে রোজা ভাঙ্গবে?

উত্তর: আতর-সুগন্ধি ব্যবহারে রোজা ভঙ্গ হবে না। তবে স্পে জাতীয় সুগন্ধি নাকের কাছে নিয়ে স্পে করা ঠিক নয়। কারণ এতে সুগন্ধির অধিক গনত্ব পেটের ভিতর প্রবেশ করার সম্ভাবনা থেকে যায়। (ফাতওয়া ইসলামিয়া, দ্বিতীয় খন্ড, পৃ: ১২৮)

৫৪. প্রশ্ন: কানে ড্রপ ব্যবহারে রোজা ভঙ্গ হবে কি না?

উত্তর: কানে যদি পানি বা তৈলাক্ত কোন পদার্থ ঢাললে তা গলায় চলে আসে তবে তা পেটে যাওয়ার আশংকা থাকে এবং রোজা ভেঙ্গে যাবে। তবে বর্তমান আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান প্রমাণ করে যে কানের সাথে গলার কোন সম্পর্ক নেই। তাই কানে ড্রপ দিলে রোজা ভাঙ্গবে না। ( আল কাওয়ানিল ফিকহিয়্যা, খন্ড ৩,পৃ:৩৫)

৫৫. প্রশ্ন: সুরমা ব্যবহার করলে রোযা ভঙ্গ হবে কি না?

উত্তর: অধিকাংশ আলেমের মতে সুরমা ব্যবহারে রোযা ভঙ্গ হবে না। কেননা আয়েশা রা: বলেন: রাসূল স: সাওম অবস্থায় চোখে সুরমা ব্যবহার করেছেন। ( ইবনে মাযাহ:৩৪৫২)

৫৬. প্রশ্ন: ডায়াবেটিক রোগীর জন্য রোজা অবস্থায় ইনসুলিন ব্যবহার বৈধ কিনা?

উত্তর:  সিয়াম পালনকারী রোগীর ক্ষেত্রে ইনসুলিন ইনজেকশন ব্যবহার করা বৈধ। কারণ ইনসুলিন এর মাধ্যমে যা শরীরে প্রবেশ করানো হয় তা খাবার ব পানীয় নয় অথবা খাবার পানীয়র অন্তর্ভূক্তও নয়। (সিয়াম ও আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান-ড. মইন‍উদ্দিন ও ডা: সরওয়ার কামাল)

৫৭. প্রশ্ন: রোজা এক্সেরে করালে রোজা ভাঙ্গবে কি না??

উত্তর: রোগ নির্ণয়ের জন্য এক্সেরে করলে রোজার কোন ক্ষতি হবে না। কারণ তা শুধূ একটি আলোক রশ্মির প্রতিফলন। যা খাদ্য বা পানীয় নয়।

৫৮. প্রশ্ন: রমজান মাসে সাওম পালনের উদ্দেশ্যে ট্যাবলেট খেয়ে মাসিক বন্ধ রাখা জায়েজ আছে কি?

উত্তর: হ্যাঁ। রোজা রাখার উদ্দেশ্যে ঔষধ ব্যবহার করে মাসিক বন্ধ রাখা জায়েয আছে। তবে শর্ত হলো নেককার চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে এবং স্বাস্থের কোন ক্ষতি হওয়ার আশংকা থাকতে পারবে না।

৫৯. প্রশ্ন: সিয়াম পালনরত অবস্থায় রক্ত নিলে রোজা ভেঙ্গে যাবে?

উত্তর: হ্যাঁ। সিয়ামরত অবস্থায় রক্ত গ্রহণ করলে রোজা ভেঙ্গে যাবে। কারণ তা খাদ্যের সারসংক্ষেপ। (ইবনে উসাইমিন, মাজমু ফাতাওয়া,খন্ড০১, পৃ.৩২৪)

৬০. প্রশ্ন: রোজা রাখা অবস্থায় কোন রোগীকে রক্ত দান করা যাবে?

উত্তর: এ ব্যাপারে সমকালীন ইসলামী চিন্তাবিদগণ একমত যে যদি শারিরীক কোন সমস্যা না থাকলে রক্তদানে কোন বাধা নেই।

লেখক, হাফেজ, মাও: নুরুল হুদা

কুরআনিক সায়েন্স এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ, আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম

খতিব, বায়তুল গফুর জামে মসজিদ, মাদামবিবির হাট, চট্টগ্রাম।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.